”হয় ধর্ম ত্যাগ করো না হয় ঘর-বাড়ি ত্যাগ করো” এমনই হুমকির মুখে পাহাড়ি নওমুসলিমরা

0
নওমুসলিম হত্যা
• আব্দুর রহমান আল হাসান

প্রায় মাসখানেক পূর্বে একজন নওমুসলিমকে হত্যা করেছে পাহাড়ী সন্ত্রাসীরাতার অপরাধ কি ছিল? তিনি মানুষকে ইসলামের দাওয়াত দিয়েছিলেনতার দ্বারা সেখানে ৩৬টি পরিবার ইসলামের সুশীতল ছায়ায় নিজেকে অর্পণ করেছেতার অপরাধ এটাইতিনি পূর্বে খৃষ্টান ধর্মের অনুসারী ছিলেন২০১৪ সনের কোনো এক স্নিগ্ধ রজনীতে নিজেকে ইসলামের জন্য সোপর্দ করেনতারপর ইলমে দ্বীন শিখে অন্যদের মাঝে তিনি ইসলামের বাণী পৌছিয়ে দিয়েছেনতার ওসিলায় সেখানে একটি ইসলামের মারকায মসজিদও নির্মাণ হয়েছেসেটা সম্পূন্ন তিনি নিজেই তৈরী করেনগত ১৮ই জুন ২০২১ তাকে উক্ত সন্ত্রাসীরা গুলি করে হত্যা করেসরকার আজ পর্যন্ত তার কোনো সুষ্ঠ বিচার করে নিএটা বাংলাদেশ রাজনীতির একটা কলঙ্কজনক অধ্যায়গতকালকের পত্রিকায় দেখলাম আরেক নতুন নিউজবান্দরবানের যেই এলাকায় নওমুসলিম ওমর ফারুকসহ অন্যান্য মুসলিম পরিবাররা থাকতেন,সেই মুসলিম পরিবারগুলো তাদের জীবন নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেনসন্ত্রাসীরা তাদের সামনে দুইটা পথ খোলা রেখেছেহয় ইসলাম ধর্ম ত্যাগ করো, না হয় বাড়ী-ঘর ছেড়ে অন্যত্র চলে যাওউক্ত ঘটনাটি ঘটছে বান্দরবানের রোয়াংছড়ি উপজেলার তুলাছড়িতেস্থানীয় সুত্র থেকে জানা যায়,নওমুসলিম ওমর ফারুক ২০১৪ সনে অমুসলিম থাকাকালীন তার নাম ছিলপূর্ণেন্দু ত্রিপুরাতারপর মুসলিম হওয়ার পর তার নাম হয় ওমর ফারুক ত্রিপুরা রহঃ তাকে হত্যা করার পর তার স্ত্রী রাবেয়া থানায় পাচঁজনের নামে মামলা করেনকিন্তু কিছুই হয় নিবাংলাদেশের পুলিশ বলে কথাঘুষ খেয়ে তারা মুখে কুলুপ এঁটে বসে বসে লকডাউন পালন করছেন!এই ঘটনা নিয়ে সে সময় সোস্যাল মিডিয়ায় খুব সবর হলে সরকার কিছুটা বিবৃতি দিয়েছিলকিন্তু এখন তা কেউ পালন করছে নাবাংলাদেশে অধিবাসী নিয়মে কি রয়েছে,তা আমার জানা নেইতবে আমি এটা জানি,এই অধিবাসীরা প্রচুর পরিমাণে অবৈধ অস্ত্র ব্যবহার এবং দেশে মাদক চোরা চালান করেআর এই কাজগুলো আঞ্চাম দেয়,পাহাড়ী সন্ত্রাসরা

আমি কিছুদিন পূর্বে এক ভিডিওতে বলেছিলাম,বাংলাদেশে ইস্যুর উপরে ইস্যু তৈরী হয়এখানে একটি নতুন ইস্যু আসলে তা নিয়ে সকলেই সপ্তাহখানেক লাফালাফি করেতারপর একসময় আবার একটি নতুন ইস্যু তৈরী হয়তখন সকলেই সেদিকে ছুটেএটা বাংলাদেশের রাজনীতির চিরায়িত নিয়ম


আমার মতে,সেনাবাহিনী এবং অন্যান্য বাহিনীর সদস্যদের শুধু শুধু দেশের হেডকোয়ার্টারগুলোতে বসিয়ে না রেখে তাদেরকে সীমান্তে মোতায়েন করুনআর বাংলাদেশ একটি সাংসদীয় ইসলামিক রাষ্ট্র হিসেবে প্রত্যেক নওমুসলিমদের পূর্ণ নিরাপত্তা দেয়া সরকারের কর্তব্যইসলামিক রাষ্ট্র বললাম এই কারণে,বাংলাদেশের সংবিধানে লেখা আছে,বাংলাদেশের রাষ্ট্রধর্ম ইসলামএর পাশাপাশি পূর্বে যারা নওমুসলিমকে হত্যা করেছে, তাদের যথাযত বিচার করে আইনের আওতায় আনা উচিৎ


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0মন্তব্যসমূহ
একটি মন্তব্য পোস্ট করুন (0)

#buttons=(আমি সম্মত !) #days=(20)

আসসালামু আলাইকুম, আশা করি আপনি ভালো আছেন। আমার সম্পর্কে আরো জানুনLearn More
Accept !